তথ্য অধিকার আইন-২০০৯ এর সফল বাস্তবায়নের লক্ষ্যে, রাজশাহী’র বাঘায় অবস্থিত আড়ানী মনোমোহিনী উচ্চ বিদ্যালয়ের সম্মেলনকক্ষে গত ২রা মে, ২০১৯ আয়োজিত হলো তথ্যে জনগণের প্রবেশাধিকারের মাধ্যমে তৃণমূল মানুষের জীবন ও জীবিকা উন্নয়ন প্রতিষ্ঠায় একাট সামাজিক সংলাপ। ফ্রিডরিখ ন্যাউম্যান ফাউন্ডেশন ফর ফ্রিডোম-এর সহায়তায়, বাংলাদেশ এনজিও’স নেটওয়ার্ক ফর রেডিও এন্ড কমিউনিকেশন (বিএনএনআরসি) ও কমিউনিটি রেডিও বড়াল-এর যৌথ আয়োজনে, অনুষ্ঠিত হয় এই কমিউনিটি’র সংলাপ। যার উদ্দেশ্য ছিল তথ্য অধিকার আইন ২০০৯-এর বাস্তবায়ন বিষয়ে জনসচেতনতা বাড়ানো ও স্থানীয় সংশ্লিষ্ট প্রতিষ্ঠানসমূহকে স্ব-প্রণোদিতভাবে তথ্য প্রদানে উৎসাহিত করা সহ তথ্য প্রদানকারী এবং তথ্য গ্রহণকারী উভয়পক্ষের মধ্যে যোগাযোগের সুযোগ সৃষ্টি করা।

‘‘তথ্যে প্রবেশাধিকারের মাধ্যমে গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর জীবন ও জীবিকা উন্নয়নে কমিউনিটি রেডিও’’ শীর্ষক উক্ত কমিউনিটি সংলাপের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে জনাব আলমগীর কবির, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব)।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে ছিলেন বাঘা উপজেলার চেয়ারম্যান জনাব লায়েবউদ্দিন লাবলু। বক্তব্যকালে তিনি বলেন,“তথ্য আদান-প্রদানে বাংলাদেশের কেউই আর পিছিয়ে নেই,তথ্য আদান-প্রদান আগের চেয়ে আরো আধুনিক হয়েছে। কাগজের চেয়ে রেডিও ও ইন্টারনেটের চাহিদা বেড়েছে। তথ্য আদান-প্রদান করার ক্ষেত্রে আমাদের আরো সচেতন হতে হবে”।

 জনাব লায়েব উদ্দিন লাবলু, চেয়ারম্যান,বাঘা উপজেলা

বিশেষ অতিথি হিসেবে আরো উপস্থিত ছিলেন আড়ানী পৌরসভার মেয়র জনাব মোঃ মুক্তার আলী, তিনি বলেন,“বাংলাদেশ সরকার তথ্য অধিকার আইন করায় গণতন্ত্র আরো সুপ্রতিষ্ঠিত হয়েছে। এর ফলে সাধারন জনগন তাদের প্রয়োজনীয় তথ্য আদায়ে আরো সচেষ্ট হবে”।

 জনাব মোঃ মুক্তার আলী, মেয়র,আড়ানী পৌরসভা

বিশেষ অতিথিদের মধ্যে রাজশাহী জেলার সিনিয়র তথ্য অফিসার জনাব ফারুক মোঃ আব্দুল মুনিম উপস্থিত ছিলেন বক্তব্যে তিনি বলেন,“সংবিধানের ৩৯ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী এ আইনে কর্তৃপক্ষ সকলকে তথ্য জানাতে বাধ্য থাকবে, কিন্তু কিছু শর্ত সাপেক্ষে কেননা নিরাপত্তার স্বার্থে সব তথ্য প্রকাশ করা যাবে না।” এবং তিনি তথ্য অধিকার সম্পর্কে বিশদ ব্যাখা প্রদান করেন ও অতিথিদের নানা প্রশ্নের উত্তর প্রদান করেন।

 জনাব ফারুক মোঃ আব্দুল মুনিম, রাজশাহী জেলার সিনিয়র তথ্য অফিসার 

‘‘তথ্যে প্রবেশাধিকারের মাধ্যমে গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর জীবন ও জীবিকা উন্নয়নে কমিউনিটি রেডিও’’ শীর্ষক উক্ত কমিউনিটি সংলাপের প্রধান অতিথি হিসেবে ছিলেন রাজশাহী জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে জনাব আলমগীর কবির, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব)।

 

 জনাব মোঃ আলমগীর কবির, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব)।

প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, “বাঙালি দেখিয়েছে স্বাধীনতা যুদ্ধে মুক্তি অর্জন করে বাঙালীরা কতটুকু পারে। বঙ্গবন্ধু বাঙালিদের নিয়ে যে স্বপ্ন দেখতেন সোনার বাংলা গড়ার সেই চেতনা নিয়ে দুরর্বার গতিতে কাজ করে যাচ্ছেন প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা। যে বিদ্যুৎ ছাড়া একটা দেশের অর্থনৈতিক ভাবে উন্নতি করা সম্ভব না, সেই বিদ্যুৎ তে আজ প্রধান মন্ত্রী সক্ষম হয়েছে। বাংলাদেশে এখন বিশ হাজার মেগাওয়াট এর ও বেশি বিদ্যুৎ উৎপাদিত রয়েছে। এছাড়াও তিনি যে দশটি উদ্যোগ নিয়েছে এর আওতায় জনগণ আরো বেশি সুবিধা ভোগ করতে পারবে। এবং মানুষ যাতে শহরের সুবিধা গুলো গ্রামে বসে থেকে ভোগ করতে পারে সে লক্ষ্যে তিনি কাজ করে যাচ্ছে। আজকের যে মূল প্রতিপাদ্য বিষয় তথ্যে প্রবেশিধাকর সে বিষয়ে সরকার একটি আলাদা আইন তৈরি করে দিয়েছে যার মাধ্যমে সাধারণ জনগণ মৌলিক চাহিদার পাশাপাশি যেন তথ্যের মাধ্যমে তাদের অধিকার নিশ্চিত করতে পারে সে লক্ষ্যে সরকার ২০০৯ সালে একটা আলদা আইন প্রনয়ন করে দিয়েছে”।

উক্ত সংলাপে প্রায় ১০০ জন স্থানীয় সরকারী শিক্ষা, স্বাস্থ্য, ভূমি, শিশু ও মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তারা ছাড়াও বিভিন্ন বেসরকারী কর্মকর্তা, রেডিও বড়ালের শ্রোতা সংঘ প্রতিনিধি, স্থানীয় মিডিয়া ও প্রেসক্লাবের সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক; দলিত ও ঋষি সম্প্রদায়ের প্রতিনিধিবর্গ অংশগ্রহণ করেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতেই সংলাপ আয়োজনের লক্ষ্য, উদ্দেশ্য, কার্যক্রম ও সংলাপ পরিচালনা পদ্ধতি অংশগ্রহণকারীদের মাঝে উপস্থাপন করা হয়। সংলাপ কর্মসূচীর মধ্যে ছিল তথ্য আইন ২০০৯ এর সংক্ষিপ্ত সার উপস্থাপন, প্যানেল সদস্যদের প্রারম্ভিক বক্তব্য উপস্থাপন, সরাসরি উন্মুক্ত সংলাপ (প্রশ্ন/মন্তব্য) পর্ব, প্রধান অতিথি ও বিশেষ অতিথিদের বক্তব্য ইত্যাদি।

অনুষ্ঠানটির প্যানেলিস্ট ছিলেন জনাব আবু সাঈদ তোতা আলহাজ্জ এরশাদ আলী মহিলা ডিগ্রী কলেজের প্রভাষক; মোসাঃ মাহমুদা বেগম (গিনি),সহকারী পরিচালক, সোয়ালোজ, চারঘাট; মোঃ রায়হান আলী, ডেভেলোপমেন্ট এক্টিভিস্ট (সোয়ালোজ) এবং সঞ্চালকের ভূমিকায় ছিলেন মোঃ হামিদুল ইসলাম চারঘাটের একনিষ্ঠ সাংস্কৃতিক কর্মী, সাথে মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপক হিসেবে ছিলেন রাজশাহী জজ কোর্টের আইনজীবি রুমা সরকার।

সংলাপে বক্তারা তথ্য দিয়ে সহায়তাকারী প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তিবর্গের স্বচ্ছতা, যথার্থতা, ভারসাম্য এবং দায়িত্বশীলতা বজায় রেখে জনগণের জীবন-জীবিকা উন্নয়নে সহায়তা দেয়ার বিষয়ে আলোকপাত করেন। প্রধান অতিথি জনাব মোঃ আলমগীর কবির বলেন,“তথ্যের উপযোগীতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে কমিউনিটি রেডিও একটি উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করতে পারে, যা তথ্য অধিকারের সঠিক মাত্রা অর্জনের গতিকে আরো ত্বরান্বিত করতে পারবে।”-

প্রশ্নোত্তর পর্বে অংশগ্রহনকারীরা বিভিন্ন বিষয় সম্বন্ধে তাদের জিজ্ঞাসা রাখেন, এবং প্যানেল সদস্য সহ উপস্থিত সংশ্লিষ্ট বিভাগের কর্মকর্তাবৃন্দ বিস্তারিতভাবে সকল প্রশ্নের জবাব দেন।

সবশেষে সংলাপের সারমর্ম উপস্থাপনের পর শ্রোতা সংঘের মাঝে রেডিও বিতরনের পর সমাপনী বক্তব্যের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানটি শেষ হয়

Leave a Comment